Breaking News
virat-kholi-captain

কোহলিকে হটাতে খেলোয়াড়রাই অভিযোগ করেছিলেন জয় শাহেরর কাছে! প্রকাশ্যে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

ভারতীয় ক্রিকেটে অনেককেই অবাক করে দিয়েছিল ১৬ সেপ্টেম্বর দিনটি। কারণ হঠাৎ করেই এদিন আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর ভারতীয় টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত সকলকে জানিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। তারপর থেকেই আলোচনা-পর্যালোচনা, তর্ক-বিতর্ক চলছে। এরই মাঝে গতকাল বিরাট এও ঘোষণা করেছেন এবারের আইপিএল শেষে আরসিবির অধিনায়কত্ব থেকেও সরে দাঁড়াবেন তিনি। বিরাট যদিও বারবারই বলছেন নিজের উপর দায়িত্বের চাপ কমাতেই একের পরে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন তিনি।

Advertisement

কিন্তু বেশকিছু সংবাদমাধ্যমের দৌলতে সামনে আসা রিপোর্ট একেবারেই অন্য কথা বলছে। জানা গিয়েছে, কোহলিকে অধিনায়কত্বের দায়িত্বভার থেকে সরানোর কথা আগে থেকেই চিন্তা করছিল বিসিসিআই। দলের অনেক সিনিয়র খেলোয়াড়ও খুশি ছিলেন না কোহলির আচরণে। বিশেষত ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের পর থেকেই খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোহলির মতপার্থক্য আরও বেশি বড় হয়ে সামনে আসে। ফাইনালে পরাজয়ের পর কোহলি বিবৃতিতে বলেছিলেন, ‘খেলোয়াড়দের সেই ইচ্ছা এবং মনোভাব ছিল না।’ যা অনেকের মনেই আঘাত করেছিল।

এমনকি এক পর্যায়ে কোচের সঙ্গে মনোমালিন্য হয় কোহলির। কোচ তাকে ব্যাটিং নিয়ে পরামর্শ দিতে গেলে তিনি বলেন, আমাকে কনফিউজ করবেন না। দলের অনেক খেলোয়াড়দের মতে, ধোনির দরজা সর্বদাই খোলা থাকতো খেলোয়াড়দের জন্য। কিন্তু কোহলিকে অনেক সময়ই সাথে পাওয়া যায় না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিসিসিআই কর্তার মতে, “বিসিসিআই সচিব জয় শাহকে দলের ঘনিষ্ঠদের মাধ্যমে এই সব সম্পর্কে জানানো হয়েছিল এবং তিনি এটি পছন্দ করেননি। শাহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গেও পরামর্শ করেন। কিছু খেলোয়াড়ের সাথেও যোগাযোগ করা হয়েছিল এবং তাদের মতামত চাওয়া হয়েছিল।” কার্যত খেলোয়াড়দের অভিযোগের ভিত্তিতেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে মেন্টর হিসেবে পাঠানো হয় ধোনিকে।

Advertisement

রবীচন্দ্রন অশ্বিন প্রসঙ্গও বারবার উঠে এসেছে, তাকে পুরো ইংল্যান্ড সিরিজে বাইরে বসিয়ে রাখা মেনে নিতে পারেননি অনেকেই। সেই কারণেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে তাকে অন্তর্ভুক্ত করে বিসিসিআই প্রমাণ করে দিয়েছিল মালিক কে। অন্যদিকে সংবাদ মাধ্যম সূত্রে এও জানা গিয়েছে যে, কোহলি নাকি এও চাননি যে রোহিত শর্মা সহ-অধিনায়ক হন। সেকথা এক বৈঠকে বলেওছিলেন তিনি। কার্যত একের পর এক এই ধরনের ঘটনাই কোহলিকে কোণঠাসা করে দিয়েছিল বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।সেই কারণেই এবার কোচ বদলের ক্ষেত্রেও বড় পদক্ষেপ নিতে চলেছে বিসিসিআই। এক কর্মকর্তার মতে, “কুম্বলেকে ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা করে বোর্ড দেখিয়ে দিয়েছে কে বস! হ্যাঁ, লক্ষ্মণের কাছেও যোগাযোগ করা হয়েছিল, কিন্তু কুম্বলে যদি প্রস্তাবটি গ্রহণ করেন, তাহলে তিনি এগিয়ে থাকবেন।

Advertisement

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

কোনও অভিযোগ করছি না, তবে এটাই সত্যি- দলে জায়গা না পাওয়া নিয়ে মুখ খুললেন ভারতের পেসার

২০২৩ সালে একটি দুর্দান্ত শুরু করেছে টিম ইন্ডিয়া। দলটি শ্রীলঙ্কা এবং নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সীমিত ওভারের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *