Breaking News
new-zealand-showed-that-the-cricket-game-should-be-one

ক্রিকেট কীভাবে খেলা উচিত এক বলেই দেখিয়ে দিল নিউজিল্যান্ড

মাত্র একটা বল! হ্যাঁ, মাত্র একটা বলেই নিউজিল্যান্ড দল বুঝিয়ে দিয়েছে ক্রিকেটটা কীভাবে খেলা উচিত।

শুধু ক্রিকেট কেন, যেকোনো খেলাই কীভাবে খেলা উচিত, তারও উদাহরণ হয়ে থাকবে কাল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল ম্যাচের একটি মুহূর্ত।

নিউজিল্যান্ডের ইনিংসে তখন ১৮তম ওভার। ক্রিস জর্ডানের করা আগের ওভারে ২৩ রান তুলে লড়াইটা বেশ জমিয়ে ফেলেছেন জিমি নিশাম। কিন্তু তখনো নিউজিল্যান্ডের জন্য বেশ খানিকটা পথ বাকি। ১৮ বলে দরকার ৩৪ রান। বেশ কঠিন লক্ষ্য। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাটসম্যানরা সাধারণত রান নিতে মরিয়া থাকেন। আদিল রশিদের করা ১৮তম ওভারে নিশামেরও তেমন প্রস্তুতিই ছিল।

ওই ওভারের প্রথম বলটা একটু খাটো লেংথের হওয়ায় নিশাম শট খেলার চেষ্টা করেন। গড়বড় হয় টাইমিংয়ে। বলটা ঠেকানোর চেষ্টা করেন আদিল রশিদ। তা করতে গিয়ে অন্য প্রান্তে দাঁড়িয়ে থাকা ড্যারিল মিচেলের গায়ের ওপর পড়েন ইংলিশ লেগ স্পিনার।

রান নেওয়ার চেষ্টায় ক্রিজ থেকে বেরিয়ে আদিল রশিদকে বল ঠেকাতে দেখে নিউজিল্যান্ড ওপেনার ফেরত যাচ্ছিলেন ক্রিজে। কিন্তু আদিল রশিদ বলটা ঠেকাতে পারেননি। বল বেরিয়ে যায় এবং তখন নিরাপদেই প্রান্ত বদল করতে পারতেন নিশাম ও মিচেল। কিন্তু মিচেল তা করেননি।

বল বেরিয়ে যাওয়ার সময় আদিল রশিদের সামনে ছিলেন মিচেল। তাঁকে ফিল্ডিংয়ে বাধা দিয়েছেন—এটা ভেবে মিচেল আর প্রান্ত বদল করেননি।

এদিকে ধারাভাষ্যকক্ষে ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক নাসের হুসেইন বলছিলেন, ‘এক রান তো নেবে। মানে কী! রান নেবে না? এটা খুবই ভালো। এটাই নিউজিল্যান্ড। আসলেই তা–ই। সহজেই এক রান নেওয়া যেত, কিন্তু অপর প্রান্তের ব্যাটসম্যান বলেছেন, “না, আমি আদিলের সামনে ছিলাম।” নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটকে বোঝাতে এটুকুই যথেষ্ট।’

নিউজিল্যান্ডের এরপর ১৭ বলে দরকার ছিল ৩৪ রান। অর্থাৎ প্রতি বলে ২ রান করে দরকার। সেমিফাইনালের মতো চাপের ম্যাচে এমন লক্ষ্য মোটেও সহজ না। এর পরও ওই ওভার থেকে ১৪ রান তুলে নেন নিশাম-মিচেল জুটি।

শেষ বলে নিশাম আউট হলেও এক ওভার হাতে রেখে ম্যাচ জেতান মিচেল। ১১ বলে ২৭ রানে আউট হওয়া নিশাম এবং ৪৭ বলে ৭২ রানে অপরাজিত থাকা মিচেল নিউজিল্যান্ডের জয়ের দুই নায়ক।

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

পাকিস্তানের হয়ে কখনোই খেলার ইচ্ছা ছিল না সিকান্দার রাজার

অতীতে অনেক সাক্ষাৎকারেই বলেছেন, ক্রিকেটার হওয়ার ইচ্ছা তাঁর ছিল না। হতে চেয়েছিলেন যুদ্ধবিমানের পাইলট। কিন্তু …

Leave a Reply

Your email address will not be published.