Breaking News

মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে পরিসংখ্যান বদলাতে মরিয়া নাইটরা

আইপিএলের ইতিহাসে কলকাতা নাইট রাইডার্স দুবারের চ্যাম্পিয়ন। এই টুর্নামেন্টের অধিক পরিসংখ্যান দেখলে বোঝা যায় যদি কোনও একটা দলের বিরুদ্ধে সবচেয়ে আন্ডার ডগ হিসেবে নামে কেকেআর, তাহলে সেই প্রতিপক্ষের নাম মুম্বই ইন্ডিয়ানস। দুই দলের মোট ২৮ বারের সাক্ষাতে ২২ বার জিতেছে মুম্বই, ছয়বার কলকাতা। একেবারে একপেশে ফলাফল। মুম্বইকে দেখলেই যেন কেমন রক্ত শূন্য হয়ে পড়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

Advertisement

প্রথম লেগে মুম্বই জিতেছিল ১০ রানে। তবে এবার দ্বিতীয় পর্বে শাহরুখ খানের দলের সামনে সুযোগ আছে এই পরিসংখ্যান একটু বদল করার। অন্তত দ্বিতীয় পর্যায়ের আইপিএলে যেভাবে শুরু করেছে দুটো দল, তাতে নাইট রাইডার্স ৯ উইকেটে পরাজিত করেছে বিরাট কোহলির আরসিবি- কে। আর অন্যদিকে মুম্বই মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস দলের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ হেরেছে।

অবশ্য ওই ম্যাচে না খেলা রোহিত শর্মা এবং হার্দিক পান্ডিয়া নাইটদের বিরুদ্ধে দলে ফিরবে কিনা এখনো স্পষ্ট নয়।খেলার সম্ভাবনা কিছুটা হলেও বেশি। কারণ প্লে-অফ নিশ্চিত করতে গেলে মুম্বইকে আর ম্যাচ হারলে চলবে না। এছাড়াও পোলার্ড, সূর্যকুমার, ঈশান কিষান, বুমরাহ, ট্রেন্ট বোল্টের মত ম্যাচ উইনিং ক্রিকেটার রয়েছে দলটার।

Advertisement

সেখানে দলের গভীরতার বিচারে নাইট রাইডার্স দলের থেকে অনেক এগিয়ে মুম্বই। কিন্তু শাহরুখ খানের দলের কাছে সহজ হিসাব। হাতে থাকা বাকি ছয়টা ম্যাচ জিতে প্লে অফ নিশ্চিত করা। তাঁদের আর কিছু হারানোর নেই। এটাই সুবিধা মনে করেন অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান।

বিশেষ করে নতুন ওপেনার ভেঙ্কটেশ আইয়ার যেভাবে ব্যাট করেছেন, তাতে নাইটদের ওপেনিং সমস্যা সমাধান হতে পারে। কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম গ্রিন সিগন্যাল দিয়ে দিয়েছেন আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলার। প্রতিপক্ষের নাম যাই হোক, এই পর্বে যেন দেখে মনে হয় সমর্থকদের গর্বিত করার জন্য খেলছেন গিল, কার্তিক, ফার্গুসন, নীতিশ রানারা।

Advertisement

অতীতে ২০১৪ সালে খারাপ শুরু করার পর টানা আট ম্যাচ জিতে ইতিহাস তৈরি করেছিল কেকেআর। সদিচ্ছা এবং সাহস থাকলে সেই দিন আবার ফিরে আসতে পারে ক্রিকেটারদের সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন বার্তা দিয়েছেন দলের মালিক শাহরুখ খান। ফলের কথা না ভেবে মাঠে নিজেদের উজাড় করে দিতে ডাক দিয়েছেন তিনি। তাই পরিসংখ্যান কলকাতার পক্ষে না থাকলেও, এই ম্যাচটায় যে কেকেআর পরিসংখ্যান বদলাতে মরিয়া থাকবে সেটা বলাই বাহুল্য।

বরুণ চক্রবর্তী যেভাবে বল করেছেন বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে, তাতে দেখে মনে হচ্ছে টুর্নামেন্টের বাকি ম্যাচগুলোয় নাইট বোলিং লাইন আপের প্রধান ভরসা হতে চলেছেন তিনি। সঙ্গে আন্দ্রে রাসেল ব্যাট করার সুযোগ না পেলেও বল হাতে তিন উইকেট দখল করেছিলেন।

Advertisement

 

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

‘কোথায় যেন আছি আমরা?’ লাইভ ইন্টারভিউয়ের মাঝে ওয়াশিংটন ভুলে গেলেন, কোথায় খেলছেন: ভিডিয়ো

ক্রিকেটের মাঠে খেলোয়াড়দের ‘ব্রেন ফেড’ মুহূর্তের সাক্ষী থাকা অনুরাগীদের কাছে নতুন কিছু নয়। একদা স্টিভ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.