Breaking News
iyer not-sleep-befor-100-run

শতরানের আগের রাতে ঘুমোতে পারেননি শ্রেয়স আয়ার, কেন

অভিষেক টেস্টেই শতরান। সব ক্রিকেটারের এমন সৌভাগ্য হয় না। কিন্তু শুক্রবার বিরল তালিকায় নাম লিখিয়ে ফেললেন শ্রেয়স আয়ার। ১৬ নম্বর ভারতীয় ব্যাটার হিসেবে অভিষেক টেস্টেই শতরানের নজির গড়লেন তিনি। ম্যাচের পর শ্রেয়স জানালেন, রাতে ভাল করে ঘুমোতেই পারেননি তিনি। উঠে পড়েছেন অনেক সকালে।

শ্রেয়সের কথায়, “প্রথম দিন থেকে যা যা এখন হয়েছে, তার জন্য আমি অত্যন্ত খুশি। আগেরদিন রাতে ভাল করে ঘুমোতে পারিনি। বিশেষত অপরাজিত থেকে ঘুমোতে যাওয়া বেশ কঠিন একটা ব্যাপার। গত কাল আমি ভালই ব্যাটিং করেছি। কিন্তু আজকের দিনটার উপরেও ফোকাস ছিল। ভাল ঘুম না হওয়ায় ভোর পাঁচটাতেই উঠে পড়েছিলাম। কিন্তু শতরান পাওয়ার পরে আমি প্রচণ্ড খুশি। অসাধারণ একটা অনুভূতি হচ্ছে।”

ভারতীয় দলের টুপি পেয়েছিলেন সুনীল গাওস্করের থেকে। প্রাক্তন অধিনায়কের পরামর্শ মাথায় গেঁথে গিয়েছে শ্রেয়সের। বলেছেন, “টুপি দেওয়ার সময় উনি আমাকে দারুণ ভাবে অনুপ্রাণিত করেছেন। একটা জিনিস আমাকে বলেছেন যেটা মাথায় ঢুকে গিয়েছে। উনি বলেছেন, ‘বেশি দূরে তাকিয়ো না। নিজেকে উপভোগ করো। নিজের অতীত ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবার দরকার নেই। সামনে বর্তমান রয়েছে। পরের বলটা কী ভাবে খেলবে সেটা নিয়ে ভাবো।’ এটা আমি সব সময় মনে রাখব।”

গাওস্করের থেকে যে টুপি পাবেন, সেটা ভাবতে পারেননি শ্রেয়স। বলেছেন, “আমি ভেবেছিলাম রাহুল দ্রাবিড় হয়তো আমার হাতে টুপি তুলে দেবেন। কিন্তু গাওস্কর স্যরকে দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। ভাবতেই পারিনি এ রকম কিছু আমার সঙ্গে হতে চলেছে। দু’জনেই খেলাটার কিংবদন্তি। যে কেউ আমাকে টুপি দিলেই খুশি হতাম।”

ভারতের প্রথম ইনিংসে ৩৪৫ রানের জবাবে ভাল জায়গায় রয়েছে নিউজিল্যান্ড। দ্বিতীয় দিনের শেষে তারা কোনও উইকেট না হারিয়ে ১২৯ তুলেছে। ম্যাচ নিয়ে শ্রেয়স বলেছেন, “ওরা শুরুটা ভালই করেছে। কিন্তু আমাদের কাজ হবে বেশি রান না দেওয়া। পিচে ভাঙন ইতিমধ্যেই ধরে গিয়েছে। ফলে কালকের পিচ কিন্তু অনেক কঠিন হতে চলেছে।”

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

ধোনির প্রথা ভেঙে দিলেন হার্দিক! দেখুন ট্রফি জিতে কার হাতে তুলে দিলেন পান্ডিয়া

প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি তাঁর মেয়াদে একটি প্রথা শুরু করেছিলেন, যেখানে একটি সিরিজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.