Breaking News

আই লাভ ইউ ধোনি’ চিৎকার শুনে স্টেডিয়ামে ঢোকার সময় আমার দিকে হাত নাড়েন ধোনি

দু’বছর পর আবার ক্রিকেট মাঠে ‘চাচা বশির’, ওরফে মহম্মদ বশির গরিব নওয়াজ। বাইশ গজে যিনি জনপ্রিয় ‘চাচা শিকাগো’ নামে। ২০১৯ বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ গ্যালারিতে বসে দেখেছিলেন ৬৩ বছরের ধোনি ভক্ত। বিশ্বকাপের মধ্যে ক্যাপ্টেন কুলের জন্মদিন পড়েছিল। লন্ডনে স্টেডিয়ামের বাইরে সরাসরি ধোনির হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়েছিলেন বশির চাচা। কিন্তু এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। করোনা কালে সামনা সামনি সাক্ষাতের সুযোগ নেই। তবুও মরুশহরে পৌঁছে ধোনির একঝলক না পেয়ে কী আর থাকা যায়! শনিবার দুবাই পৌঁছেই বিকেলে ছুটে যান স্টেডিয়ামে। সন্ধেয় প্রাকটিস ছিল টিম ইন্ডিয়ার। বাস থেকে বিরাটদের মেন্টরকে নামতে দেখেই চিৎকার করেন ‘আই লাভ ইউ ধোনি।’ সেটা শুনেই দূর থেকে হাত নাড়েন এমএসডি। তারপর রাতে হোটেলে ফিরে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের টিকিট চেয়ে ধোনিকে মেসেজ করেন ‘চাচা শিকাগো’।

রবিবার সকালে ম্যাচের কয়েক ঘন্টা আগে দুবাই স্পোর্টস সিটির হোটেল ঘর থেকে aajkaal.in কে ‘চাচা শিকাগো’ জানান, ‘ধোনি অবসর নেওয়ার পর আর মাঠে যেতে ইচ্ছে করে না। শেষ বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখেছি। তখন ধোনির জন্মদিন পড়েছিল। নিরাপত্তারক্ষীরা আমাকে আটকে দিয়েছিল। কিন্তু ধোনি এগিয়ে এসে আমার হাত থেকে ফুলের গুলদস্তা নিয়েছিল। তারপর গত দু’বছর আর মাঠ মুখো হইনি। দুবাই পৌঁছে শনিবার সন্ধেয় স্টেডিয়ামে গিয়েছিলাম ভারতীয় দলের প্র্যাকটিসে।
ধোনিকে দেখেই বাইরে থেকে ‘আই লাভ ইউ’ বলে চিৎকার করি। হাত নাড়েন ধোনি।’ চাচা জানালেন, ভারতীয় দল পাম হোটেলে উঠেছে। একই হোটেলে ওঠার ইচ্ছে ছিল তাঁর। কিন্তু সেখানে থাকতে হলে প্রতিদিন ৫০০ ডলার খরচ করতে হত। তাই স্টেডিয়ামের ঠিক সামনে দুবাই স্পোর্টস সিটির হোটেলে উঠেছেন তিনি।

জন্মসূত্রে পাকিস্তানি। বাসিন্দা শিকাগোর।‌ হৃদয়ে ধোনি। রবিবারের মহারণে কাকে সমর্থন করবেন? দুবাই থেকে ফোনে aajkaal.in কে চাচা বলেন, ‘পাকিস্তান আমার দেশ। ধোনি আমার মহব্বত। পাকিস্তানের নাগরিক হিসেবে চাইব না দেশ হারুক। তবে ধোনিও হতাশ হোক সেটাও চাই না। তাই আজকে আমি নিউট্রাল। যেই জিতুক না কেন আমার কোনও আক্ষেপ থাকবে না। দিনের শেষে ক্রিকেটের জয় হবে।’ মহার্ঘ্য টিকিট এখনও হাতে পাননি। তবে নিশ্চিত দুপুরের মধ্যে টিকিট পেয়ে যাবেন। কী পড়ে মাঠে যাবেন সেটা ঠিক করে ফেলেছেন। জার্সির একদিকে ভারত, আরেক দিকে পাকিস্তান। আর মাঝে নীল রঙের সাত নম্বর জার্সিতে দু’হাত শূন্যে তোলা ধোনির ছবি। লেখা ‘ওয়েলকাম ব্যাক ধোনি’।

কোভিড বিধি মেনে তিন রকমের মাস্কও বানিয়েছেন চাচা। সেখানেও ভারত-পাকিস্তানকে মিলিয়ে দিয়েছেন। কোনওটায় মাস্কের একদিকে নীল, অন্যদিকে সবুজ। দু’দিকেই লেখা পিস, লাভ, ফ্রেন্ডশিপ। কোনওটায় আবার একদিকে ধোনির ছবি, অন্যদিকে লেখা চাচার নাম। আরেক রকমের মাস্কে ধোনি এবং তাঁর পরিবারের সঙ্গে নিজের ছবি। আজ ‘চাচা বশির’ নিউট্রাল, তাই হাতে থাকবে আমেরিকার পতাকা। কিন্তু হৃদয় পড়ে থাকবে ভারতীয় ড্রেসিংরুমে।

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

জুলাই মাসের সেরা জয়াসুরিয়া

জুলাই মাসের প্লেয়ার অব দ্য মান্থের নাম প্রকাশ করেছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এ মাসের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.