Breaking News
big-score-bangladesh

সাকিবের লড়াইয়ের পর রিয়াদ ঝড়ে বাংলাদেশের রেকর্ড সংগ্রহ

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসরের প্রথম রাউন্ডের খেলায় মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও পাপুয়া নিউগিনি। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ জড়ো করেছে ১৮১ রান, যা বিশ্বকাপে টাইগারদের সবচেয়ে বড় দলীয় ইনিংসের রেকর্ড।

Advertisement

ওমানের আল আমেরাত স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ওপেনার নাঈম শেখকে হারিয়ে ফেলে টাইগাররা।

প্রথম বলেই নাঈমের বল চলে গিয়েছিল উইকেটরক্ষকের কাছে। যদিও সেই বলে বেঁচে যান বাঁহাতি ওপেনার। তবে পরের বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দিলে স্কোর বোর্ডে কোনো রান তোলার আগেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

Advertisement

এরপর বিপর্যয় প্রতিরোধের দায়িত্ব নেন আরেক ওপেনার লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান। দ্বিতীয় উইকেটে দুজনে গড়েন ৫০ রানের পার্টনারশিপ। পাওয়ারপ্লেতে বাংলাদেশ পায় ৪৫ রান। ২৩ বলে ২৯ রান করে লিটন বিদায় নিলে ভাঙে এই জুটি। লিটন এদিন হাঁকান একটি করে চার-ছক্কা।

আগের ম্যাচে আট নম্বরে নামা মুশফিকুর রহিম এই ম্যাচে নেমেছিলেন চার নম্বরে। তবে যথারীতি ব্যর্থ ছিলেন। ৮ বলে ৫ রান করে তিনি বিদায় নিলে ক্রিজে আসেন অধিনায়ক রিয়াদ। রিয়াদকে ক্রিজে রেখে সাজঘরে ফেরেন দারুণ খেলতে থাকা সাকিব।

Advertisement

মাত্র ৪ রানের জন্য সাকিব পাননি অর্ধশতকের দেখা। ৩৭ বলের মোকাবেলায় ৩টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৪৬ রান করেন এই অলরাউন্ডার। তার বিদায়ের পর ক্রিজে এসে রান বাড়ানোর দায়িত্ব নেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। তবে রিয়াদ যতক্ষণ ক্রিজে ছিলেন আফিফকে ততক্ষণ খুব বেশি ঘাম ঝরাতে হয়নি।

পাপুয়া নিউগিনির বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে ২৮ বলের মোকাবেলায় ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ অর্ধশতক পূর্ণ করেন রিয়াদ, হাঁকান ৩টি করে চার-ছক্কা। এর আগে অধিনায়ক হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অর্ধশতক হাঁকিয়েছিলেন মাত্র একজন (ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০০৭ বিশ্বকাপে মোহাম্মদ আশরাফুলের ৬১)। আশরাফুলের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েই অবশ্য সাজঘরে ফিরতে হয় ২৭ বলে অর্ধশতক হাঁকানো রিয়াদকে।

Advertisement

শেষদিকে সাজঘরে ফেরা আফিফ ১৪ বলে ২১ রান করেন, তিনটি চারের সহায়তায়। শেষপর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৮১ রান। নুরুল হাসান সোহান গোল্ডেন ডাকের স্বাদ নিলেও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৬ বলে ১৯ (একটি চার ও ২টি ছক্কা) ও শেখ মেহেদী হাসান ৩ বলে ২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

পাপুয়া নিউগিনির পক্ষে কাবুয়া মরেয়া, ডেমিয়েন রাভু ও অধিনায়ক আসাদ ভালা দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

বিরাটদের ব্যাটিং বিপর্যয়ে ব্যর্থ বোলাররাও! ক্যাচ ফস্কে, রান গলিয়ে হার বাংলাদেশের কাছে

এক দিনের সিরিজ়ে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। Advertisement টস জিতে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক …

Leave a Reply

Your email address will not be published.