Breaking News
5-match-win-pakistan-in-worldcup

মালিক-রিজওয়ানের রেকর্ডের দিনে পাকিস্তানের পাঁচে পাঁচ

স্কটল্যান্ডকে ৭২ রানে হারিয়ে শতভাগ জয় নিয়েই গ্রুপ পর্ব শেষ করল পাকিস্তান। আগে ব্যাটিং করে শোয়েব মালিক ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের রেকর্ডের দিনে পাকিস্তান সংগ্রহ করে ৪ উইকেটে ১৮৯ রান। স্কটল্যান্ড সংগ্রহ করেছে ১১৭ রান।

Advertisement

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নামে পাকিস্তান। রিজওয়ান আজ স্বভাবসুলভ ইনিংস খেলতে না পারলেও গড়েছেন এক বিশ্বরেকর্ড। কিংবদন্তি ক্রিস গেইলকে ছাপিয়ে এক বছরে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানের মালিক হয়েছেন তিনি। আজ তিনি করেন ১৯ বলে ১৫ রান।

এখন পর্যন্ত এ বছরে রিজওয়ানের মোট রান ১৬৭৬। এজন্য রিজওয়ানের লেগেছে ৪১ ম্যাচ। গত জুলাই মাসেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এই রেকর্ডের মালিক হয়েছিলেন রিজওয়ান। ২০১৫ সালে ১৬৬৫ রান করেছিলেন গেইল।

Advertisement

ফখর জামান ১৩ বলে ৮ রান করে ক্রিস গ্রেভসের শিকার হন। প্রথম ১০ ওভারে বেশ ধীরে খেলে পাকিস্তান। রান রেট কখনো ৬ এর নিচে কিংবা কখনো সামান্য একটু ওপরে ছিল। চারে নামা মোহাম্মদ হাফিজ ১৯ বল ৩১ রানের ছোট ঝড় তুলে সাজঘরে ফেরেন। ১১২ রানে ৩ উইকেট হারায় পাকিস্তান।

ফর্মের তুঙ্গে থাকা বাবর আজম হাঁকান অর্ধশতক ৪৭ বলে ৬৬ রান করে গ্রেভসের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। বাবরের ইনিংসটিতে ছিল ৫টি চার ও ৩টি ছক্কা। শেষ দিকে টর্নেডো বইয়ে দেন মালিক। মাত্র ১৮ ফলে পূর্ণ করেন অর্ধশতক। ১ চার ও ৬ ছক্কায় ১৮ বলে ৫৪ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেন তিনি।

Advertisement

৪০ বছর বয়সী মালিকের এই অর্ধশতকই এখন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে পাকিস্তানের পক্ষে দ্রুততম অর্ধশতক। এই বিশ্বকাপে যৌথ দ্রুততম ও বিশ্বে তৃতীয় দ্রুততম অর্ধশতক মালিকের ১৮ বলের এই ইনিংসটি।

নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তান সংগ্রহ করে ১৮৯ রান। স্কটল্যান্ডের পক্ষে দুইটি উইকেট পান গ্রেভস।

Advertisement

বড় লক্ষ্যের জবাব দিতে নেমে ধীরগতিতে শুরু করে স্কটল্যান্ড। ৪১ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে অপেক্ষাকৃত দুর্বল দলটি। পঞ্চম উইকেটে ৪৬ রানের জুটি গড়েন মাইকেল লিস্ক ও রিচি বেরিংটন। লিস্ককে বোল্ড করে এই জুটি ভাঙেন শাহীন আফ্রিদি।

সতীর্থদের সমর্থন না পেলেও একপ্রান্তে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন রিচি। ৩৪ বলে অর্ধশতক পূরণ করেন এই স্কটিশ ব্যাটার। তবে রিচির একার পক্ষে দলকে জেতানো সম্ভব ছিল না। নির্ধারিত ২০ ওভারে স্কটল্যান্ড সংগ্রহ করে রান। ফলে পাকিস্তান পায় ৭২ রানের জয়।

রিচি খেলেন ৩৭ বলে ৫৪ রানের ইনিংস। পাকিস্তানের পক্ষে ৪ ওভারে মাত্র ১৪ রান খরচ করে দুইটি উইকেট নেন শাদাব খান। শাহীন ২৫ রানে ১টি উইকেট পান। হাসান আলি একটি মেডেন ওভার করারও পরও ৪ ওভারে ৩৩ রান খরচ করেন নেন ১টি উইকেট।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে এটি পাকিস্তানের টানা ১৬তম জয়। এবারের বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বেও শতভাগ জয় নিয়েই সেমিফাইনাল খেলবে পাকিস্তান।

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

আইসিসির বিচারে ‘স্পিরিট অফ ক্রিকেট’ পুরস্কার পেলেন নেপালের আসিফ শেখ

২২ গজে ভালো ব্যবহার, বিপক্ষকে সম্মান দেখানো এসব বিষয়কে সব সময় প্রাধান্য দেওয়া হয় বিশ্ব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *