Breaking News

মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে হবে- পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াবে ভারত বিশ্বাস শ্রেয়সের

ভারতীয় ব্যাটসম্যান শ্রেয়স আইয়ার স্বীকার করেছেন যে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ওডিআইতে একটি দল হিসাবে কিছু জিনিস তাদের পথে যায় নি এবং তাদের ‘আত্মদর্শন’ করতে হবে এবং সিরিজের বাকি দুটি ম্যাচে আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরে আসতে হবে। টম ল্যাথামের অপরাজিত ১৪৫ এবং অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের অপরাজিত ৯৪ রানের সাহায্যে নিউজিল্যান্ড ভারতের ৩০৭ রানের লক্ষ্য ১৭ বল বাকি থাকতেই সাফল্যের সঙ্গে করেছিল। এদিনের ম্যাচটি সাত উইকেটের জয় নিবন্ধন করেছিল কিউয়িরা।

Advertisement

শ্রেয়স আইয়ার, যিনি ৭৬ বলে ৮০ রান করেছিলেন, তিনি ম্যাচের পরে বলেছিলেন যে সাত উইকেটে ভারতের মোট ৩০৬ রানটা ছিল ভালো কিন্তু ল্যাথাম এবং উইলিয়ামসনের মধ্যে চতুর্থ উইকেটের জুটিতে ২২১ রানের পার্টনারশিপ স্বাগতিকদের জন্য জয়ের সীলমোহর করে দিয়ে ছিল।

এদিনের ম্যাচের পর সাংবাদিক সম্মেলনে এসে শ্রেয়স আইয়ার বলেন, ‘আমরা যে অবস্থানে ছিলাম এবং যেখান থেকে আমরা ৩০৭ রানে পৌঁছেছি সেটি বিবেচনা করে এটি একটি দুর্দান্ত স্কোর ছিল। স্পষ্টতই কিছু জিনিস আজ আমাদের পক্ষে যায়নি তবে এটি একটি শেখার প্রক্রিয়া, আমরা আত্মদর্শন করতে পারি এবং পরের ম্যাচে একটি নতুন কৌশল নিয়ে ফিরে আসতে হবে।’ ডানহাতি ব্যাটসম্যান আরও বলেছেন যে ভারত পরাজয়ে হতাশ হয়ে বসে থাকতে পারে না এবং দলটি ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে পরের দুটি ম্যাচে খেলবে।

Advertisement

শ্রেয়স আইয়ার আরও বলেন, ‘ভারত থেকে এসে সরাসরি এখানে খেলা সহজ নয়। উইকেট সর্বত্র পরিবর্তিত হয় এবং এখানে আপনাকে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। আপনাকে মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে হবে, শুধু পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে হবে।’ ল্যাথাম ও উইলিয়ামসনের ইনিংসের প্রশংসা করে আইয়ার বলেন, ‘দুজনেই দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন। তারা জানতেন নির্দিষ্ট সময়ে কোন বোলারকে টার্গেট করতে হবে। আমি বিশ্বাস করি তাদের পার্টনারশিপ ম্যাচের গতিপথকে পুরোপুরি বদলে দিয়েছে এবং সেটাই ছিল আমাদের জন্য উইকেট পাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়।’ আইয়ার বলেছেন, ‘আমরা যদি একটি উইকেট নিতাম, তাহলে আমরা আধিপত্য বিস্তার করতে পারতাম এবং পরিস্থিতি পুরোপুরি বদলে যেত। কিন্তু আলগা বলগুলোকে চার ও ছক্কায় রূপান্তরিত করেন তাঁরা। তাঁরা বেশ নির্ভয়ে খেলছিলেন যা তাদের সাহায্য করেছিল।’

ভারতের ম্যাচ জেতার প্রশ্নে শ্রেয়স আইয়ার বলেন, ‘আমরা চাপ তৈরি করতে পারতাম। ব্যাটিংয়ের সময় যদি ল্যাথাম আরও ভালো চেষ্টা করত তাহলে পরিস্থিতি অন্য রকম হতো। আক্রমণাত্মক ফিল্ডিংয়ের মাধ্যমে আমরা ম্যাচের ফল বদলাতে পারতাম। এটা আমাদের জন্য একটা শিক্ষার মতো।’ ওয়ানডে বিশ্বকাপের প্রশ্নে ভারতীয় ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমি খুব বেশি এগিয়ে ভাবতে পছন্দ করি না। আমার হাতে যা আছে তাই করছি। আমি প্রশিক্ষণ করছি।’

Advertisement

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

কোনও অভিযোগ করছি না, তবে এটাই সত্যি- দলে জায়গা না পাওয়া নিয়ে মুখ খুললেন ভারতের পেসার

২০২৩ সালে একটি দুর্দান্ত শুরু করেছে টিম ইন্ডিয়া। দলটি শ্রীলঙ্কা এবং নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সীমিত ওভারের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *