Breaking News

প্রেমের গল্পে এখন বিচ্ছেদের বিষাদ কোহলিদের

উগান্ডা ও নামিবিয়াকে ছাড়ছেই না ৬৮। ১২ এপ্রিল উগান্ডাকে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ৬৮ রানে অলআউট করেছিল নামিবিয়া। সে ম্যাচে ৩ উইকেটে জিতেছিল স্বাগতিক দল। গতকাল আবার মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। ছেলেদের জ্বালা মেয়েরা মেটাতে এবার নামিবিয়াকে ৬৮ রানে অলআউট করেছিল উগান্ডা। তবে সকালেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪১ রানে একবার অলআউট হওয়া নামিবিয়ার মেয়েরা হাল ছাড়েননি। ২৮ রানের জয় পেয়েছে দলটি।

তবে ২৩ এপ্রিল আর ৬৮ রান—এই যুগলবন্দীতে কাল সবার মুখে ছিল অন্য এক নাম—রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। গতকাল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে মুম্বাইয়ের ব্র্যাবোর্ন স্টেডিয়ামে বিরাট কোহলি, ফাফ ডু প্লেসি ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলরা মাত্র ৬৮ রানে গুটিয়ে গেছেন। তাতেই ২৩ এপ্রিল দিনটার সঙ্গে প্রেমটা চিরতরে চুকেবুকে গেছে কোহলিদের।

২০১৩ সালে গেইলের সেই অবিশ্বাস্য ইনিংস
গতকাল কী হয়েছে, সেটা তো আগেই বলা হয়ে গেল। তবে ৯ বছর আগে ২৩ এপ্রিল দিনটা ছিল অন্য রকম। ২০১৩ সালের ২৩ এপ্রিল ঘরের মাঠে খেলতে নেমেছিল বেঙ্গালুরু। চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সেদিন বারবার ইতিহাস লিখেছে দলটি। ভুবনেশ্বর কুমার ও লুক রাইট ৮ ওভারে মাত্র ৪৯ রান দিয়েছিলেন। কিন্তু বাকি ১২ ওভারে যা হয়েছে, তা অবিশ্বাস্য। ক্রিস গেইল সেদিন অশোক দিন্দা, মিচেল মার্শদের নিয়ে ছেলেখেলা করেছেন। বোলারদের বাঁচাতে এক ওভার করতে এসে ২৯ রান দিয়েছেন অ্যারন ফিঞ্চ।

১৬৭ রানের উদ্বোধনী জুটিতে তিলকরত্নে দিলশানের অবদান ছিল ৩৩ রান। সেটাও ৩৬ বলে! কোহলির ১১ রানও এসেছিল ৯ বলে। শুধু এবি ডি ভিলিয়ার্স ৩১ রান করেছিলেন ৮ বলে। তবু ২০ ওভার শেষে বেঙ্গালুরুর রান ২৬৩!

২৩ এপ্রিলেই ৪৯ রানে অলআউট হয়েছেন কোহলিরা
কারণ, সেদিন গেইল অন্য গ্রহের ক্রিকেটার বনে গিয়েছিলেন। ৬৬ বলের ইনিংসে ৩০টি বলই সীমানার বাইরে পাঠিয়েছেন। ১৩ চার ও ১৭ ছক্কায় সেদিন ১৭৫ রানে অপরাজিত ছিলেন গেইল। মাত্র তিন বছর আইপিএলে থেকেও তাই সব বড় রানের রেকর্ডে নাম জড়িয়ে আছে পুনে ওয়ারিয়র্সের। সেদিন পুনেকে ১৩৩ রানে আটকে ১৩০ রানের জয় পেয়েছিল বেঙ্গালুরু।

চার বছর পর অবশ্য উল্টো স্বাদ পেয়েছে বেঙ্গালুরু। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ১৩২ রানের লক্ষ্য পেয়েছিল তারা। সেদিনও একাদশে ছিলেন গেইল, কোহলি, ডি ভিলিয়ার্স। তিন মহাতারকার প্রথমজন সেদিন ১৭ বলে ৭ রান করেছেন। ডি ভিলিয়ার্স করেছেন ৬ বলে ৮ রান। ওদিকে কোহলি আউট হয়েছেন প্রথম বলেই। আর দল? বেঙ্গালুরু গুটিয়ে গিয়েছিল ৪৯ রানে। এপ্রিলের ২৩ তারিখেই!

আবারও ২৩ এপ্রিলে গোল্ডেন ডাক কোহলির
আইপিএলের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন স্কোর দুটিই বেঙ্গালুরুর, দুটিই ২৩ এপ্রিলে। শুধু ব্যবধান চার বছরের।

কাল ছিল এই দুই স্কোরের নবম ও পঞ্চম বর্ষপূর্তি। গেইল এবার আর আইপিএলে খেলছেন না, ডি ভিলিয়ার্স তো অবসরই নিয়ে নিয়েছেন। কিন্তু ফাফ ডু প্লেসি, ম্যাক্সওয়েল ও দিনেশ কার্তিকরা দলকে দারুণ কিছু জয় এনে দিয়েছেন। ভালো ফর্মে থাকা সে দলটি বেশ চনমনে মন নিয়েই নেমেছিল। এমন দিনে কোহলি আবারও প্রথম বলে শূন্য রানে ফিরলেন। দলও গুটিয়ে গেল ৬৮ রানে। সে সঙ্গে ‘প্রাপ্তি’ ৯ উইকেটের হার।

২০১৩ সালে ২৩ এপ্রিল দিনটা বেঙ্গালুরুকে অবিশ্বাস্য এক আনন্দ দিয়েছিল। কিন্তু দিনটি এখন তাদের যন্ত্রণার নাম হয়ে উঠেছে।

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Cricvive Desk

Cricvive is a sports media company that produces original video, audio, and written content for cricvive.com and other media partners, as well as the general public and news organizations.

Check Also

সিপিএল থেকে নাম সরিয়ে নিলেন গেইল

সর্বশেষ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) আগে মেগা নিলাম থেকে নিজের নাম সরিয়ে নিয়েছিলেন ক্রিস গেইল। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.