Breaking News

“খেলনে কা নহি, পেলনে কা টাইম হ্যায়…”, কার্তিকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সেহওয়াগ

সোশ্যাল মিডিয়ায় আপাতত একটা কথাই ট্রেন্ড হতে শুরু করেছে। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের পর যদি কেউ ভারতীয় ক্রিকেট দলে দুরন্ত প্রত্যাবর্তন করে থাকেন, তাহলে তিনি আর কেউ নন দীনেশ কার্তিক। শুক্রবার (১৭ জুন) কার্তিকের জমকালো ৫৫ রানের পাশাপাশি আভেশ খানের ১৮ রানের ৪ উইকেট শিকারের দৌলতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৮২ রানে পরাস্ত করে ভারতীয় ক্রিকেট দল। আর সেইসঙ্গে রাজকোটের সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে পাঁচ ম্যাচের এই টি-২০ সিরিজে সমতা ফিরিয়ে আনে। টানা চারবার টসে হেরে ভারতীয় ক্রিকেট দল শেষপর্যন্ত জয়ের মুখ দেখতে পেয়েছে। আপাতত আগামী রবিবার বেঙ্গালুরুতে এই সিরিজের ফয়সালা হবে।

এই ম্যাচে ২৭ বলে ৫৫ রান করেন দীনেশ কার্তিক। তাঁর এই ইনিংসে ৯টি বাউন্ডারি এবং জোড়া ছক্কা রয়েছে। স্ট্রাইক রেট ২০৩.৭। এছাড়া তিনি হার্দিক পান্ডিয়ার (৩১ বলে ৪৬ রান) সঙ্গে ৩৩ বলে ৬৫ রানের দুরন্ত একটা পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন। আর এই পার্টনারশিপের দৌলতেই ভারতীয় ক্রিকেট দল ৬ উইকেটে ১৬৯ রান করেছে। তবে এই রান কার্যত তাড়াই করতে পারল না দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রোটিয়া ব্রিগেডের মাত্র তিনজন ব্যাটার দুই অঙ্কের রানে পৌঁছতে পেরেছিল। ১৬.৫ ওভারে মাত্র ৮৭ রানেই তারা অলআউট হয়ে যায়। তবে এই অলআউটের পিছনে আভেশ খানের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

ইতিমধ্যে ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ টুইটারে আভেশ খান এবং দীনেশ কার্তিকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে উঠেছেন। জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ ‘স্ক্যাম ১৯৯২’-এর একটা ছবি তিনি টুইট করেন। সেইসঙ্গে ক্যাপশনে লিখেছেন, “আজ প্রথমার্ধে খেল দেখাল ডিকে। আর দ্বিতীয়ার্ধে আভেশ খান। প্রথম তিনটে ম্যাচে উইকেট শিকার করতে না পারার জন্য দলের প্রথম একাদশে এই আভেশের জায়গা নিয়েই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল। ভারতীয় ক্রিকেট দল নিজস্ব মেজাজেই এই ম্যাচে জয়লাভ করেছে।”

এবার আসা যাক ম্যাচের কথায়। প্রথমে ব্যাট করে ভারতীয় ক্রিকেট দল ৬ উইকেটে ১৬৯ রান করেছে। কেরিয়ার সেরা পারফরম্য়ান্স করেছেন দীনেশ কার্তিক। তবে তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়েছেন হার্দিক পান্ডিয়া।

এরপর বল হাতেও ভারতীয় ক্রিকেটাররা কার্যত কামাল দেখালেন। ৬.৫ ওভারে মাত্র ৮৭ রানেই অলআউট হয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

বল হাতে কার্যত এই ম্যাচে আগুন জ্বালালেন আভেশ খান। তিনি মাত্র ১৮ রান দিয়ে চারটে উইকেট শিকার করে নিলেন। অন্যদিকে যুজবেন্দ্র চাহাল (২-২১) শিকার করেন জোড়া উইকেট। এছাড়া হর্ষল প্যাটেল ২ ওভার বল করে একটা উইকেট শিকার করেন।

ইতিপূর্বে টসে জিতে দক্ষিণ আফ্রিকা ভারতকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায়। মাত্র ৭ ওভারের মধ্যে ভারতীয় ক্রিকেট দল ৪০ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে। কিন্তু তারপর হার্দিক পান্ডিয়া (৩১ বলে ৪৬ রান) এবং অধিনায়ক ঋষভ পন্থ (২৩ বলে ১৭ রান) ৪০ বলে ৪১ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন। ঋষভ ফিরে গেলেও দীনেশ কার্তিকের সঙ্গে হার্দিক ৩৩ বলে ৬৫ রানের দুরন্ত একটা পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন।

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

About Dipok Deb Nath

Check Also

প্রত্যাবর্তনে কামাল জেমির, শ্রীলঙ্কাকে ৩৪ রানে হারাল ভারত

মিতালি রাজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর এই প্রথমবার কোনও দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে নামছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.